পবিত্র মাহে রমজান সিয়াম সাধনা ও আত্মশুদ্ধির মাস। প্রতিটি ধর্মপ্রাণ মুসলমানের জন্য রমজান মাস অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। বছরের বিশেষ এই মাসটি মহান আল্লাহর পক্ষ থেকে মুমিন বান্দাদের জন্য অফুরন্ত নেয়ামত আর বরকতে পরিপূর্ণ।

প্রতি বছর রমজান আসলে ২৯ কিংবা ৩০টি রোজা পালন করেন মুসল্লিরা। তবে ২০৩০ সালে রাখতে হবে ৩৬টি রোজা। এ ছাড়া ২০৩৩ সালেও পুরো দুই মাস রোজা পালন এবং তিনটি ঈদ উদযাপন করতে হবে!

এমনটি কেন?

বিষয়টি নিয়ে দুবাই অ্যাস্ট্রোনমি গ্রুপের চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার হাসান আহমেদ আল হারিরি বলেন, ২০৩০ সালে দুটি রমজান হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

কারণ হিসেবে চন্দ্র বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ইংরেজি বর্ষপঞ্জি ও চান্দ্র বছরের মাসগুলোর পার্থক্যের কারণে এমনটা ঘটবে। সাধারণত ইংরেজি বছরের মাসগুলো ৩০ অথবা ৩১ দিনে নির্ধারিত থাকে। তবে চান্দ্র বছরের মাসগুলো নির্ধারিত হয় ২৯ অথবা ৩০ দিনে। মাসে দিনের এই পার্থক্যের কারণে ইংরেজি বছর শেষে চান্দ্র বছর ১১ দিন কমে যায়। আর বছরে ১১ দিন পার্থক্য থেকে যাওয়ায় ২০৩০ সালে দুবার রমজান মাস পাবে মুসলমানরা, বললেন চন্দ্র বিশেষজ্ঞ মিনহাল খান।

এ ছাড়া ২০৩০ সালের গ্লোবাল ইসলামিক ক্যালেন্ডারেও এই তথ্যের সত্যতা পাওয়া গেছে। ইসলামিক ক্যালেন্ডার অনুযায়ী, ২০৩৩ সালেও দুবার পূর্ণ রমজান মাস আসবে এবং সে বছর মোট তিনটি ঈদ অনুষ্ঠিত হবে।

সৌদি আরব বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোল বিভাগের জলবায়ুর অধ্যাপক ড. আবদুল্লাহ আল মুসনাদ বলেন, ১৪৫১ হিজরির পবিত্র রমজান মাস শুরু হবে ২০৩০ সালের ৫ জানুয়ারি। এ মাসটি ৩০ দিন পূর্ণ হবে। অর্থাৎ ফেব্রুয়ারির ৩ তারিখে শেষ হবে রমজান মাস। এ হিসাবে রমজান মাসের রোজা হবে ৩০টি।

এরপর একই বছর ২৬ ডিসেম্বর থেকে শুরু হবে ১৪৫২ হিজরির রমজান মাস। ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত মুমিন মুসলমান ৬ দিন রোজা পালন করবে। সে হিসাবে ২০৩০ সালে মুসলিম উম্মাহ ৩৬ দিন রোজা পালন করবে। এ ছাড়া ২০৩০ সালের গ্লোবাল ইসলামিক ক্যালেন্ডারেও এই তথ্যের সত্যতা পাওয়া গেছে।

ইসলামিক ক্যালেন্ডার অনুযায়ী, ২০৩৩ সালেও দুবার পূর্ণ রমজান মাস আসবে। সে বছর দুবার ঈদুল ফিতর অনুষ্ঠিত হবে। যার ফলে ২০৩৩ সালে মোট তিনটি ঈদ অনুষ্ঠিত হবে।

By shawaib

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *