চলতি অর্থবছরের প্রথম ৮ মাসে (জুলাই-ফেব্রুয়ারি) দেশে এসেছে ১ হাজার ৭১৯ কোটি ২১ লাখ ডলারের রেমিট্যান্স। সবচেয়ে বেশি রেমিট্যান্স এসেছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলো থেকে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রবাসীরা।

সম্প্রতি বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রকাশিত হালনাগাদ প্রতিবেদনে এমন তথ্য উঠে এসেছে।

তথ্য অনুযায়ী, চলতি ২০২৩-২৪ অর্থবছরের জুলাই-ফেব্রুয়ারি সময়ে প্রবাসীরা ১ হাজার ৭১৯ কোটি ২১ লাখ ডলারের রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি ২৯০ কোটি ৬১ লাখ ডলা র এসেছে ।

এ ছাড়া শীর্ষ ১০ দেশের তালিকায় আরও রয়েছে সৌদি আরব, যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, ওমান, মালয়েশিয়া, কুয়েত, ইতালি, কাতার ও বাহারাইন। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১৭৮ কোটি ৮৬ লাখ ডলার রেমিট্যান্স এসেছে সৌদি আরব থেকে।

আর যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, ওমান, মালয়েশিয়া, কুয়েত, ইতালি, কাতার ও বাহারাইন থেকে এই সময়ে রেমিট্যান্স এসেছে যথাক্রমে ১৮৮ কোটি ৮ লাখ, ১৬৭ কোটি ৫২ লাখ, ৬০ কোটি ৩০ লাখ, ৯৬ কোটি ৯১ লাখ, ৯৭ কোটি ৫৫ লাখ, ১০০ কোটি ডলার, ৭৫ কোটি ৫ হাজার ও ৩৬ কোটি ৪৩ লাখ ডলার।

সাধারণত ঈদের আগে দিয়ে রোজার মাসে প্রবাসী আয়ের প্রবাহ বাড়ে। তবে হুন্ডির চেয়ে ব্যাংকে ডলারের দর কম থাকায় বৈধ পথে মার্চ মাসের প্রথম ২৯ দিনে রেমিট্যান্স আগের মাসের তুলনায় কমেছে। আলোচ্য এ সময়ে প্রবাসীরা ব্যাংকিং চ্যানেলে ১৮১ কোটি ৫১ লাখ ডলার পাঠিয়েছেন। যেখানে এর আগের মাসের একই সময়ে এসছিলো ২১৬ কোটি ৪৫ লাখ ডলারের রেমিট্যান্স। অর্থাৎ আগের মাসের একই সময়ের তুলনায় রেমিট্যান্স কমেছে ৩৪ কোটি ৯৪ লাখ ডলার।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য বলছে, চলতি মার্চ মাসের প্রথম ২৯ দিনে বৈধপথে ১৮১ কোটি ৫১ ডলারের রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা। দেশীয় মুদ্রায় প্রতি ডলার ১১০ টাকা ধরে যার পরিমাণ প্রায় ২০ হাজার কোটি। দৈনিক গড়ে আসছে ৬ কোটি ২৫ লাখ ডলার বা ৬৮৮ কোটি টাকার বেশি।

এর মধ্যে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে ২২ কোটি ৭৫ লাখ ডলার, বিশেষায়িত একটি ব্যাংকের মাধ্যমে ৩ কোটি ৩ লাখ ডলার, বেসরকারি ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে এসেছে ১৫৪ কোটি ৯৮ লাখ ডলার এবং বিদেশি ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে এসেছে ৭৪ লাখ ৩০ হাজার ডলার রেমিট্যান্স।

চলতি বছরের প্রথম মাস জানুয়ারিতে দেশে রেমিট্যান্স এসেছিল ২১০ কোটি মার্কিন ডলার, আর ফেব্রুয়া‌রিতে আসে ২১৬ কো‌টি ৬০ লাখ ডলার। অপরদিকে সমাপ্ত ২০২৩ সালের শেষ মাস ডিসেম্বরে প্রবাসীরা পাঠিয়েছেন ১৯৯ কোটি ডলারের রেমিট্যান্স। ২০২৩ সালের জানুয়ারিতে রেমিট্যান্স এসেছে ১৯৫ কোটি ৮৮ লাখ ডলার, ফেব্রুয়ারি ১৫৬ কোটি ডলার, মার্চে ২০২ কোটি, এপ্রিলে ১৬৮ কোটি, মে মাসে ১৬৯ কোটি, জুনে ২২০ কোটি, জুলাইয়ে ১৯৭ কোটি, আগস্টে ১৫৯ কোটি ৯৪ লাখ, সেপ্টেম্বর মাসে ১৩৩ কোটি, অক্টোবরে ১৯৭ কোটি, নভেম্বর ১৯৩ কোটি ডলার রেমিট্যান্স এসেছে।

এর আগে গত ২০২২-২৩ অর্থবছরে মোট রেমিট্যান্স এসেছে ২ হাজার ১৬১ কোটি ৭ লাখ ডলার। আগের ২০২১-২০২২ অর্থবছরে মোট রেমিট্যান্স এসেছিল ২ হাজার ১০৩ কোটি ১৭ লাখ ডলার। ২০২০-২১ অর্থবছরে রেমিট্যান্স এসেছিল ২ হাজার ৪৭৭ কোটি ৭৭ লাখ ডলার। যা সর্বোচ্চ পরিমাণ রেমিট্যান্স।

By shawaib

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *