আমিরাতের দুবাইয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত বাংলাদেশিদের মরদেহ দেশে পাঠাতে আইনি প্রক্রিয়া চলছে। এ বিষয়ে সহযোগিতা করছে স্থানীয় পুলিশ ও বাংলাদেশ মিশন।

দুবাইয়ে গত রোববার (৭ জুলাই) মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারান চার জন প্রবাসী বাংলাদেশি। তাদের মরদেহ দেশে পাঠাতে বাংলাদেশে মিশন তাদের পাসপোর্ট এবং কোম্পানির নাম সংগ্রহ করেছে।

আমিরাতে অবস্থানরত নিহতদের স্বজনরা মরদেহ দ্রুত দেশে পাঠাতে আবুধাবি পুলিশ ও বাংলাদেশ মিশনের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছেন।

এদিকে মর্মান্তিক এই দুর্ঘটনায় স্থানীয় বাংলাদেশ কমিউনিটিতে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। গত কয়েক বছরে সড়ক দুর্ঘটনায় একসঙ্গে এতো বাংলাদেশির মৃত্যু হয়নি বলে জানিয়েছেন কমিউনিটির নেতারা।

কমিউনিটি নেতা এ কে আজাদ বলেন, আমরা যদি এভাবে দুর্ঘটনার শিকার হই তাহলে পারিবারিকভাবে আমরা বিশাল ক্ষতিগ্রস্ত হই।

দুর্ঘটনার পর শোকবার্তা জানিয়েছে বাংলাদেশ কনস্যুলেট দুবাই। বাংলাদেশ কনস্যুলেটের জেনারেল বি এম জামাল হোসেন বলেন, দুর্ঘটনার পর আগুনে মরদেহগুলো পুড়ে যায়। এতে মরদেহ শনাক্তে কিছুটা সময় লেগেছে।

তিনি আরও বলেন,নিহতদের পাসপোর্ট আমরা হাতে পেয়েছি। তাদের নাম ঠিকানা আমরা জেনেছি। তাদের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে আমাদের যোগাযোগ না হলেও এখানে তাদের প্রতিনিধিদের সঙ্গে আমাদের কথা হয়েছে। এই মরদেহগুলো যাতে দ্রুত বাংলাদেশে পাঠানো যায় সেজন্য যা যা করণীয় সে ব্যবস্থা আমরা গ্রহণ করছি।

নিহতরা হলেন নবাবগঞ্জ উপজেলার বালেঙ্গা গ্রামের শেখ ইব্রাহীমের ছেলে ইবাদুল ইসলাম (৩৫), আব্দুল হাকিমের ছেলে রাশেদ (৩২), লুৎফর রহমানের ছেলে রানা (৩০), শেখ ইরশাদের ছেলে রাজু (২৪) ও দোহার উপজেলার মঞ্জুর ছেলে হিরা মিয়া (২২)।

আরও পড়ুন... জীবন নিয়ে উক্তি