প্রেমিকাকে দামি উপহার কিনে দিতে জুয়েলারি দোকানে চুরি করেছেন একজন ব্যাংক কর্মকর্তা। ইতোমধ্যে ওই কর্মকর্তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

ভারতীয় পুলিশের পক্ষ থেকে বৃহস্পতিবার (৬ই জুন) বলা হয়েছে, প্রেমিকাকে উপহার দিতে এবং তাদের বিলাসবহুল জীবনযাপনের ব্যয় মেটানোর জন্য অভিযুক্ত চুরি করেছেন। চুরির এই ঘটনা প্রথম প্রকাশ্যে আসে মঙ্গলবার। চেন্নাইয়ের টি. নগরে সারাভানা এলিট স্টোরের কর্মীরা সারাদিনের বিক্রি শেষে রাতে যখন হিসাব মেলাতে বসেন তখন দেখতে পান দুইটি সোনার রিং খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না।

সিসিটিভি ফুটেজে তারা দেখতে পান একজন গ্রাহক সোনার রিং নিয়ে বেরিয়ে যাচ্ছে। এরপর তারা মামবালাম পুলিশ স্টেশনে অভিযোগ দায়ের করেন।

পুলিশ সিসিটিভি ফুটেজ নিয়ে এরপর তল্লাশিতে নামে। অভিযুক্ত ব্যক্তি পরবর্তীতে একই দোকানের অন্য শাখায় চুরির চেষ্টা চালায়। সেইসময় শোরুমের একজন স্টাফ তাকে ধরে ফেলে এবং মামবালাম পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে।

জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশ জানতে পারে অভিযুক্তের নাম সতিশ কুমার (২৬), তিনি এমসিএ স্নাতক এবং শহরের একটি প্রাইভেট ব্যাংকে চাকরি করেন। পুলিশ জানায়, অভিযুক্ত স্বীকার করেছে তিনি ওই দোকান থেকে চুরি করেছেন এরপর পাল্লাভারামে তা বিক্রি করেন।

জিজ্ঞাসাবাদে অভিযুক্ত আরও জানান, তিনি প্রতিমাসে ৩০ হাজার রুপি বেতন পান কিন্তু এই অর্থে গার্লফ্রেন্ডসহ তার বিলাসী জীবন কাটানোর জন্য যথেষ্ট নয়। অভিযুক্ত পুলিশকে বলেছেন, তিনি এখন পর্যন্ত চারটি জুয়েলারি দোকান থেকে চুরি করেছেন, দোকানে যখন ভিড় থাকে তখনই তিনি চুরি করেন।

সূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া

আরও পড়ুন... জীবন নিয়ে উক্তি