মালয়েশিয়া থেকে অসুস্থ অবস্থায় প্রবাসী দেলোয়ার হোসেন দেশে ফিরলেও স্ত্রী-সন্তান তার দায়িত্ব নিতে রাজি হচ্ছে না। গতকাল শুক্রবার (৩০ মে) ভোরে বাংলাদেশ বিমানযোগে অসুস্থ অবস্থায় বাকশক্তি হারিয়ে মালয়েশিয়া থেকে দেশে ফেরেন মাদারীপুরের দেলোয়ার হোসেন। কিন্তু গ্রামে ফিরতে পারেননি তিনি।আজ শনিবার দুপুরে ব্র্যাক মাইগ্রেশন ওয়েলফেয়ার সেন্টারের ম্যানেজার আল আমিন নয়ন জানান, তাকে আপাতত ব্র্যাকের ওয়েলফেয়ার সেন্টারে রাখা হয়েছে।তার পরিবার তাকে নিতে চাচ্ছে না।

জানা গেছে, গতকাল শুক্রবার সকালে তিনি দেশে ফিরলেও বিমানবন্দরে স্বজনরা না আসায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের কর্মীরা দেলোয়ারকে এয়ারপোর্ট আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন) অফিসে রেখে যান। পরিবার খুঁজে হস্তান্তরের জন্য ব্র্যাকের সহায়তা চেয়ে ফোন করা হয়। পরে ব্র্যাকের মাইগ্রেশন বিভাগের কর্মীরা ছুটে যান।

তার আগে বিমানবন্দর স্বাস্থ্য বিভাগ এসে দ্রুত চিকিৎসার জন্য পাঠান বাংলাদেশ কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালে, কিন্তু রোগীর অবস্থা দেখে তারা চিকিৎসা বা ভর্তি নিতে রাজি হয়নি। এরপর সেখান থেকে নেওয়া হয় কুর্মিটোলা হাসপাতালে। সেখানেও একই অবস্থা হলে এপিবিএন অফিসের সহায়তায় চিকিৎসা করে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। এখন দেলোয়ার ব্র্যাক মাইগ্রেশন ওয়েলফেয়ার সেন্টারের তত্ত্বাবধানে ব্র্যাক লার্নিং সেন্টার আশকোনায় আছেন।

ব্র্যাকের মাইগ্রেশন বিভাগ জানিয়েছে, ভুক্তভোগী দেলোয়ার দীর্ঘ সাত বছর মালয়েশিয়ায় ছিলেন। স্ত্রী, সন্তান ও ভাইয়ের নম্বরে এপিবিএন থেকে যোগাযোগ করা হলে তারা দেলোয়ারের দায়িত্ব নিতে রাজি হননি। দেলোয়ার মালয়েশিয়ায় স্ট্রোকের কারণে বাকশক্তি হারান। ফলে দেহের ডান অংশ পুরোপুরি অকেজো হয়ে পড়ে তার।

আরও পড়ুন... জীবন নিয়ে উক্তি