আমিরাতে বসবাসকারী বাংলাদেশিদের প্রবাসী কল্যাণ কার্ড করে নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন দুবাই নিযুক্ত বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল বিএম জামাল হোসেন।

রবিবার (৩০ জুন) সারজা বাংলাদেশ কমিটি কর্তৃক শারজা হুদায়বিয়া রেস্টুরেন্টের হলরুমে আয়োজিত শোক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ আহ্বান জানান।

প্রয়াত জহিরুল ইসলামের স্মরণে এ শোক সভার আয়োজন করা হয়।

শোক সভায় তিনি বলেন, ২০২৩ সালে ৪৮৭ জন প্রবাসী বাংলাদেশি এখানে মৃত্যুবরণ করেছে। এ বছর জুন পর্যন্ত প্রায় ৩’শ মৃত্যু বরণ করেছে। মৃত্যুর হারও কিন্তু বাড়ছে। এটি হচ্ছে প্রবাসীদের জন্য সবচেয়ে বেদনাদায়ক। পরিবার পরিজন ছেড়ে শুধুমাত্র ভাগ্যের অন্বেষণে জীবিকার তাগিদে দেশ থেকে পাড়ি জমিয়ে এখানে তারা এসেছে। তারা কষ্ট করে মাথার ঘাম পায়ে ফেলে ইনকাম করে। সে অর্থ দেশে প্রেরণ করেন তারা। এটা নিয়ে আমরা গর্ববোধ করি। এটা দিয়ে তার পরিবার-পরিজন সচ্ছল থাকে। দেশ সমৃদ্ধ হয়।

তিনি আরও বলেন, যারা লিগ্যাল না শুধুমাত্র তাদের জন্য এ সমস্যাটা হয়। কিন্তু যাদের বিএম কার্ড আছে তাদের জন্য কোনো সমস্যা নেই। যাদের প্রবাসী কল্যাণ কার্ড নেই তারা এটি করে নেবেন। মৃত্যুতো কখন আসবে কেউ জানে না। সুতরাং এ কার্ডটি থাকলে কোনো ধরনের সমস্যা হয় না।

মরহুম জহিরুল ইসলাম সুস্থভাবে পরিপূর্ণভাবে হজব্রত পালন করেছেন। তিনি একজন সাদা মনের মানুষ ছিলেন। তিনি অসহায়ত্ব প্রবাসীদের সহযোগিতায় কাজ করে গেছেন।

তিনি বলেন, প্রবাস জীবন বেশি নয়। আমাদের একদিন সবাইকে চলে যেতে হবে দেশে। আমাদের এমন কাজ করা উচিত আমরা চলে গেলেও প্রবাসীরা আমাদের স্মৃতি স্মরণ করবে, মনে রাখবে এবং দোয়া করবে। যেমনটি করে গেছেন এই জহিরুল ইসলাম।

বাংলাদেশ সমিতির সাবেক সভাপতি আলহাজ শরাফত আলীর সভাপতিত্বে ও বাংলাদেশ সমিতি শারজার সিনিয়র সহ-সভাপতি ইসমাইল গণি চৌধুরীর সঞ্চালনায় শোক সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশিষ্ট ইসলামি চিন্তাবিদ ড. এনায়েতুল্লাহ আব্বাসী, সিআইপি প্রকৌশলী আবু জাফর চৌধুরী, প্রকৌশলী মোহাম্মদ সালাউদ্দিন, ব্যাংকার মহিউদ্দিন জ্জামান, সিআইপি বদরুল ইসলাম চৌধুরী, আলহাজ ইয়াকুব সৈনিক, কাজী মোহাম্মদ ওসমান, জালাল উদ্দিন মদিনা, মোহাম্মদ আজিম উদ্দিন, মাওলানা ফজলুল কবির চৌধুরী,

হাফেজ মাওলানা কারী মহিবুর রহমানের কোরআন তেলাওয়াতের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু হয়। শুরুতে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন আরব আমিরাত প্রবাসী সাংবাদিক সমিতির সভাপতি সাইফুল ইসলাম তালুকদার। আরও বক্তব্য রাখেন মরহুমের সন্তান সাইফুল ইসলাম, মাহফুজুর রহমান, সিরাজুল ইসলাম নবাব, মো. আবুল কাশেম, বাংলাদেশ সমিতির সহ-সমাজ কল্যাণ সম্পাদক আব্দুল গফুর, ওয়াহেবুল মোস্তফা চৌধুরী, জুলফিকার ওসমান, নুরুল আবছার, নাসির উদ্দিন বাবর, দুবাই আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজী শফিকুর রহমান,

আরও পড়ুন... জীবন নিয়ে উক্তি