‘কোনো প্রশ্নের উত্তরে না বলো না’, বাক্যটিকে নিজের জীবনে পাওয়া সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ পরামর্শ বলে মনে করেন সংযুক্ত আরব আমিরাতভিত্তিক পোশাক ডিজাইনার শাথা এসা আল মোল্লা। অবশ্য এ নারীর এগিয়ে চলার গল্পও এমন। সামনে যত বাধা এসেছে দুর্দমনীয় ইচ্ছায় তা ঠেলে দাঁড়িয়েছেন। ২০১৬ সালে দুবাইয়ে চালু করেন ডিজাইনার পোশাকের দোকান, গত বছর এতে যুক্ত হয়েছে শিশুদের পোশাক। এরই মধ্যে দেশের গণ্ডি ছাড়িয়ে ঐতিহ্যবাহী ও আধুনিক পোশাকের ফিউশন ছড়িয়ে দিয়েছেন পশ্চিমা বিশ্বেও।

ইউএইর অল্প কয়েকজন ডিজাইনারের পোশাক লন্ডনে বিলাসপণ্য বিক্রির জন্য বিখ্যাত হ্যারোডস ডিপার্টমেন্টাল স্টোর শোভা পাচ্ছে, তাদেরই একজন শাথা এসা আল মোল্লা। দুবাই কালচার নামের সরকারি উদ্যোগের অংশ হিসেবে এখানে প্রদর্শিত হচ্ছে শিশুদের পোশাক, যার ব্র্যান্ডনেম হচ্ছে শাথা এসা কিডস। অবশ্য আবায়া, কাফতান ও কম সেলাই ব্যবহার হয়— এমন পোশাকের জন্য পরিচিত এ আমিরাতি ডিজাইনার। হ্যারোডস স্টোরে নিজের পোশাক পণ্য তুলে ধরতে পারাকে ‘মাইলফলক’ বলে উল্লেখ করেছেন শাথা এসা আল মোল্লা।

এটি তরুণ আমিরাতি প্রতিভার একটি ইতিবাচক উপস্থাপনও।’ হ্যারোডসের রিটেইলস স্পেস নিজের মতো করে সাজিয়েছেন শাথা এসা। তিনি জানিয়েছেন, বাচ্চাদের জন্মদিনের পার্টির মতো করে পুরো বিভাগটি সাজিয়েছেন। এতে থাকা ইন্টারেটিভ থিয়েটারের মাধ্যমে পোশাকের বৈচিত্র্য ও আকর্ষণীয় দিকগুলো তুলে ধরা হয়েছে। এ বিষয়ে দুবাই কালচারের প্রকল্প ও ইভেন্ট বিভাগের পরিচালক খুলুদ খুরির ভাষ্য, আমিরাতি ডিজাইনাররা তাদের উদ্ভাবন, স্বতন্ত্র ধারণা ও তা প্রতিষ্ঠায় সফল। উচ্চাভিলাষী প্রকল্প বাস্তবায়নের মাধ্যমে তাদের প্রতিভার বিস্তৃত দিগন্ত উন্মোচিত হচ্ছে। খবর দ্য ন্যাশনাল

আরও পড়ুন... জীবন নিয়ে উক্তি