বৈদ্যুতিক গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান টেসলার প্রধান নির্বাহী হিসেবে ইলন মাস্ক ৫৬ বিলিয়ন ডলার বা ৫ হাজার ৫৮০ কোটি টাকা বেতন নেন। এই বার্ষিক পারিশ্রমিক প্যাকেজ শেয়ারহোল্ডারদের অনুমোদন না দিতে আহ্বান জানিয়েছে প্রক্সি পরামর্শক সংস্থা গ্লাস লুইস। এই প্যাকেজ অনুমোদিত হলে তা হবে যুক্তরাষ্ট্রের করপোরেট জগতের সর্বোচ্চ বেতন ভাতা।

যেমন তারা বলছে, এই পারিশ্রমিক প্যাকেজ অনুমোদিত হলে কোম্পানির মালিকানা কাঠামোয় নেতিবাচক প্রভাব পড়তে পারে। তারা আরও বলেছে, ইলন মাস্ক এমন প্রকল্পে যুক্ত আছেন, যেখানে তাঁকে অনেক বেশি সময় ব্যয় করতে হয়। এ ছাড়া টুইটারের প্রসঙ্গও এনেছে এই পরামর্শক সংস্থা।

এই বেতন ভাতা প্যাকেজ টেসলার পরিচালনা পর্ষদ অনুমোদন করেছে, যদিও মাস্কের সাথে সখ্যের কারণে এই পর্ষদ প্রায়ই বড় ধরনের সমালোচনার মুখে পড়ে। এই পারিশ্রমিকের প্যাকেজে বেতন ও বোনাস নেই; বরং টেসলার বাজার মূলধনের ভিত্তিতে এই প্যাকেজ নির্ধারণ করা হয়েছে।

টেসলার বাজার মূল্য ৬৫০ বিলিয়ন বা ৬৫ হাজার কোটি ডলার পর্যন্ত উঠেছিল; বর্তমানে যা ৫৭১ দশমিক ৬ বিলিয়ন বা ৫৭ হাজার ১৬০ কোটি ডলারে নেমে এসেছে।

চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে যুক্তরাষ্ট্রের অঙ্গরাজ্য ডেলাওয়ারের এক আদালত এই বেতন-ভাতা অতিরিক্ত বলে খারিজ করে দেন। আদালত জানান, কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদ মাস্কের এই বিপুল পরিমাণ অর্থের ন্যায্যতা নিশ্চিত করতে পারেনি।

ডেলাওয়ার আদালতের রায়ে বলা হয়, মাস্কের এই বেতন-ভাতা কল্পনারও অসাধ্য এবং শেয়ারহোল্ডারদের জন্য তা অন্যায্য।

এই রায়ের পর ইলন মাস্ক টেসলার নিবন্ধন ডেলাওয়ার থেকে সরিয়ে টেক্সাসে নেওয়ার চেষ্টা করেন।

গ্লাস লুইস ইলন মাস্কের এই চেষ্টারও সমালোচনা করেছে। তারা বলেছে, এটা করা হলে শেয়ারহোল্ডাররা অনিশ্চিত মুনাফা ও অতিরিক্ত ঝুঁকির সম্মুখীন হবে।

চলতি মাসে এক সাক্ষাৎকারে টেসলার পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান রবিন ডেনহলম্ ফাইন্যান্সিয়াল টাইমসকে বলেন, এই পারিশ্রমিক মাস্কের প্রাপ্য। কারণ হিসেবে তিনি বলেন, মাস্কের নেতৃত্বে টেসলা উচ্চাভিলাষী লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করেছে, যেমন এই সময় কোম্পানির রাজস্ব ও স্টক মূল্য বেড়েছে।

২০০৮ সালের ইলন মাস্ক টেসলার প্রধান নির্বাহী হন। ২০১৮ সালে টেসলার ২২০ কোটি ডলার ক্ষতি হয়েছিল। সেখান থেকে টেসলার বার্ষিক মুনাফা ১ হাজার ৫০০ কোটি ডলারে উন্নীত করেছেন তিনি। গাড়ি উৎপাদনও বেড়েছে সাত গুণ।

বিনিয়োগকারীদের প্রতি গ্লাস লুইসের আরও পরামর্শ হলো, ইলন মাস্কের ভাই কিমবাল মাস্ককে পরিচালক হিসেবে নির্বাচিত না করা। তবে টোয়েন্টি ফার্স্ট সেঞ্চুরি ফক্সের প্রধান নির্বাহী জেমস মারডককে পরিচালক হিসেবে নির্বাচিত করার পরামর্শ দিয়েছে তারা।

রয়টার্সের আরেক সংবাদে বলা হয়েছে, ২০২২ সালে পারিশ্রমিক হিসেবে ২ হাজার ৩৫০ কোটি মার্কিন ডলার পেয়েছিলেন ইলন মাস্ক; সুন্দর পিচাই, সত্য নাদেলা, টিম কুক, এন চন্দ্রশেখরনসহ বিশ্বের অন্যান্য শীর্ষ নির্বাহী কর্মকর্তার চেয়ে যা অনেক বেশি।

আরও পড়ুন... জীবন নিয়ে উক্তি