একটি বিশালাকার বিমান অবতরণ করল কলকাতা বিমানবন্দরে। বিমানটি ৫৬ মিটার লম্বা ও ৪৫ মিটার চওড়া। এই অদ্ভুত দেখতে বিমানটিকে দর্শন করার জন্য যাত্রীদের মধ্যে কার্যত হুড়োহুড়ি পড়ে যায় রবিবার। বিশাল আকারের পাশাপাশি এই বিমানটির আকৃতিও ভারী অদ্ভুত। বিমানের সামনের দিকটি তিমি মাছের মত সরু। তিমি মাছের আদলেই এই বিমানটি নির্মাণ করা হয়েছে।

জানা গিয়েছে, এই বিশালাকার বিমানটির নাম বেলুগা। মালপত্র পরিবহন করার জন্য এই বিমানটিকে ব্যবহার করা হয়। বিমানটি আকাশে ওড়ার সময় এটিকে একটি উড়ন্ত তিমি মাছের মত দেখতে লাগে। কলকাতা বিমানবন্দরে শনিবার রাত সাড়ে বারোটা নাগাদ এই বিমানটি অবতরণ করে। মূলত জ্বালানি সরবরাহ ও বিমান কর্মীদের বিশ্রামের জন্য এটিকে নামানো হয় কলকাতা বিমানবন্দরে।

কলকাতা বিমানবন্দরে এই বিমানটি রবিবার সারাদিন ছিল। রবিবার সারাদিন অভিনব এই বিমান দেখার সুযোগ পান যাত্রীরা। এরপর বেলুগা বিমানটি তাইল্যান্ডের উদ্দেশ্যে রাত নটা নাগাদ রওনা দেয়।

বেলুগার কলকাতায় আগমন বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে টুইট করে জানানো হয়। কলকাতা বিমানবন্দরের তরফে টুইটে লেখা হয়, ” কে এসেছে দেখুন! এই বেলুগা পৃথিবীর অন্যতম বৃহত্তম বিমান। জ্বালানি সরবরাহ ও কর্মীদের বিশ্রামের উদ্দেশ্যে এটি এখানে ল্যান্ড করেছে।”

স্বাভাবিকভাবেই কলকাতা বিমানবন্দরে রবিবার এই বিমানটিকে দেখার জন্য যাত্রীদের মধ্যে হুড়োহুড়ি পড়ে যায়। কারণ এত বড় আকারের বিমান সাধারণত কলকাতায় দেখা যায় না। এছাড়াও তিমি মাছের আদলে তৈরি এই বিমানের নকশাও মন জয় করেছে যাত্রীদের। বহু মানুষ এই বিমানের ছবি তুলে পোস্ট করেছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। কেউ কেউ আবার সেলফিও তুলেছেন বিমানটির সাথে।

বিশালাকারী এই বিমানটি তৈরি করে ইউরোপীয় বিমান সংস্থা এয়ারবাস। বেলুগা নামের একটি তিমি মাছের আদলে এই বিমানের নকশা করা হয়েছে বলে এই বিমানের নামও বেলুগা। এই ধরনের তিমির আকৃতির একাধিক বিশালাকার বিমান তৈরি করা হয়েছে এয়ারবাসের পক্ষ থেকে।

আরও পড়ুন... জীবন নিয়ে উক্তি