দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোতে আজ শুক্রবার (৭ জুন) দেখা গেছে জিলহজ মাসের চাঁদ। ফলে এসব দেশে আগামী ১৭ জুন সোমবার উদযাপিত হবে ঈদুল আজহা। যা কোরবানির ঈদ নামেও পরিচিত।

বিশ্বের ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা বছরে দুটি ঈদ পালন করে থাকেন। প্রথমটি ঈদুল ফিতর বা রোজার ঈদ। অপরটি কোরবানির ঈদ।

এ বছর (২০২৪) পাকিস্থানে ঈদুল ফিতর পালিত হয়েছে ১০ এপ্রিল। এছাড়া ভারতের কিছু অঞ্চলে ১০ এপ্রিল ঈদ উদযাপিত হয়। কিন্তু বাংলাদেশে ঈদ হয় ১১ এপ্রিল। বাংলাদেশের মতো ভারতের বেশিরভাগ রাজ্যেও ১১ এপ্রিল ঈদের আনন্দে মাতেন সাধারণ মানুষ।

রোজার ঈদ উদযাপনের দিনে ভিন্নতা দেখা গেলেও বাংলাদেশ ও পাকিস্তানে এ বছর কোরবানির ঈদ একইদিনে পালিত হবে।

বাংলাদেশ সময় রাত ৯টার পর জিলহজের চাঁদ দেখার ঘোষণা দেন ধর্মমন্ত্রী ফরিদুল হক খান। অপরদিকে পাকিস্তানের স্থানীয় সময় রাত ৮টার চাঁদ ওঠার ঘোষণা দেশটির রুয়েত-ই-হিলাল কমিটি।

ভারতে কেন্দ্রীয়ভাবে ঈদের কোনো ঘোষণা না আসলেও সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস জম্মু ও কাশ্মির, লখনৌতে চাঁদ দেখতে পাওয়ার সংবাদ জানায়। এছাড়া শ্রীলঙ্কাতে ১৭ জুন ঈদ উদযাপনের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে বলে জানায় সংবাদমাধ্যমটি।

এর আগে গতকাল ৬ জুন পশ্চিম আকাশে জিলহজের চাঁদ দেখার ঘোষণা দেয় সৌদি আরবের সুপ্রিম কোর্ট। সে হিসেবে আগামী ১৬ জুন ঈদুল আজহা হবে। আর হজ বা আরাফাতের দিন হবে ১৫ জুন।

হাজীরা হজ শেষ করে আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভের আশায় পশু কোরবানি করে থাকেন। সৌদিতে দুম্বা, ভেড়া ও উট কোরবানি দেওয়ার প্রচলন রয়েছে। এছাড়া অনেকে গরুও কোরবানি করে থাকেন। তবে ভারত, বাংলাদেশ ও পাকিস্তানে বেশিরভাগ মানুষ গরু কোরবানি করেন। এছাড়া ভারত পাকিস্তানে অনেকে উটও কোরবানি করেন।

আরও পড়ুন... জীবন নিয়ে উক্তি