কোরআন শিক্ষা পরিষেবা দেওয়া অনেক ব্যক্তি অযোগ্য পবিত্র গ্রন্থের ভুল ব্যাখ্যাসহ ইসলামের শিক্ষা ও নীতি সম্পর্কে ভুল বোঝাবুঝি হতে পারে লাইসেন্স ছাড়া কোরআন শেখালে দুই মাসের কারাদণ্ড ও ৫০ হাজার দিরহাম জরিমানা।

সংযুক্ত আরব আমিরাতে লাইসেন্স ছাড়া ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে পবিত্র কোরআন শিক্ষা দেওয়ায় একটি প্রতিষ্ঠানকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। রবিবার (২ জুন) এ তথ্য জানিয়েছে দুবাইভিত্তিক সংবাদমাধ্যম খালিজ টাইমস।

দেশটির ইসলামিক অ্যাফেয়ার্স, এনডাউমেন্টস এবং জাকাত অথরিটি নাগরিক ও বাসিন্দাদের জানিয়েছে, কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে লাইসেন্স না পাওয়া পর্যন্ত এ ধরনের কোনো প্রতিষ্ঠান তৈরি বা পরিচালনা নিষিদ্ধ।

সংশ্লিষ্টদের মতে, লাইসেন্স ছাড়া ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে কোরআন শিক্ষা পরিষেবা চালু থাকলে কিছু বিপদ হতে পারে; যেহেতু তরুণ প্রজন্মের সুরক্ষায় ধর্মীয় শিক্ষার যথার্থতা এবং উপযুক্ততা নিশ্চিত করা গুরুত্বপূর্ণ।

ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে কোরআন শিক্ষা পরিষেবা দেওয়া অনেক ব্যক্তি অযোগ্য। তাদের ধর্মীয় শিক্ষার বিষয়েও প্রমাণের অভাব রয়েছে। এর ফলে পবিত্র গ্রন্থের ভুল ব্যাখ্যাসহ ইসলামের শিক্ষা ও নীতি সম্পর্কে ভুল বোঝাবুঝি হতে পারে বলে মনে করছে ইসলামিক অ্যাফেয়ার্স, এনডাউমেন্টস এবং জাকাত অথরিটি।

তারা লাইসেন্স ছাড়া কোরআন শিক্ষা পরিষেবা চালু করা অনেকের ক্লাসই পর্যবেক্ষণ করেছে। এসব ব্যক্তি বিজ্ঞাপন দিয়ে মানুষকে ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে কোরআন শিখতে প্রলুব্ধ করেছে। এ বিষয়ে সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে অভিভাবকদের।

সংযুক্ত আরব আমিরাতে লাইসেন্স ছাড়া কোরআন শেখালে কমপক্ষে দুই মাসের কারাদণ্ড ও ৫০ হাজার দিরহামের বেশি জরিমানার সুযোগ রয়েছে। ক্ষেত্রবিশেষে অভিযুক্ত দুটি শাস্তিই পেতে পারেন।

আরও পড়ুন... জীবন নিয়ে উক্তি