সংযুক্ত আরব আমিরাতের আজমানে শনিবার (২২ জুন) আজমান ইন্ডিয়ান অ্যাসোসিয়েশন হলে আয়োজিত বাংলা কার্নিভ্যাল অনুষ্ঠানে পুলিশ পরিদর্শক মামুন এমরান খানের হত্যার অন্যতম পলাতক আসামি আরাভ খান ওরফে রবিউল ইসলামের হামলায় এক সাংবাদিক আহত হয়েছেন। আহত সাংবাদিকের নাম মেহেদী রুবেল। তিনি যমুনা টিভির আরব আমিরাত প্রতিনিধি ও বাংলাদেশ প্রেস ক্লাব ইউএইর সদস্য।

অনুষ্ঠানটির আয়োজন করেছেন বাংলাদেশি চলচ্চিত্র পরিচালক অনন্য মামুন। অনুষ্ঠানে চলচ্চিত্র প্রযোজক আরশাদ আদনান, বাংলাদেশ কনস্যুলেট দুবাইয়ের কনসাল জেনারেল বি এম জামাল হোসেনসহ বাংলাদেশ কমিউনিটির বিশিষ্ট ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

জানা গেছে, আন্তর্জাতিক পুলিশ সংস্থা ইন্টারপোলের মোস্ট ওয়ান্টেড তালিকায় থাকা বিতর্কিত রবিউল ইসলাম ওরফে আরাভ খানের নেতৃত্বে হঠাৎ ৩০-৪০ জনের একটি দল অনুষ্ঠানস্থলে ঢুকে পড়ে। এ সময় অনুষ্ঠানের আয়োজক ও নিরাপত্তাকর্মীরা তাদের বাধা দেন। এ ঘটনার ভিডিও ধারণ করছিলেন স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মীরা। পরে উত্তেজিত হয়ে কর্তব্যরত সাংবাদিকদের ওপর চড়াও হন আরাভ খান ও তার সহযোগীরা। এতে আহত হন যমুনা টিভির আমিরাত প্রতিনিধি মেহেদী রুবেল।

এ সময় আরও বেশ কয়েকজন গণমাধ্যমকর্মী লাঞ্ছিত হন। কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা করা হয় তাদের ক্যামেরা ও মোবাইল। একপর্যায়ে অনুষ্ঠানে বিশৃঙ্খলা ছড়িয়ে পড়ে। আগত অতিথি ও দর্শকরা আতঙ্কিত হয়ে পড়েন।

তখন স্থানীয় একজন আরাভ খানসহ অন্যদের শান্ত হওয়ার অনুরোধ জানালে তিনি উত্তেজিত হয়ে নিজেকে ভারতীয় নাগরিক দাবি করে বলেন, আমি ভারতীয় নাগরিক। অনুষ্ঠানের মধ্যে আমার অসংখ্য লোকজন আছে। আমাকে ঢুকতে না দিলে সব পণ্ড করে দেবো।

একপর্যায়ে পুলিশি সহায়তায় তাকে অনুষ্ঠানস্থল ত্যাগ করতে বাধ্য করা হয়।

এ ঘটনায় অনুষ্ঠানের আয়োজকরা তাৎক্ষণিক কিছু বলতে চাননি। অপরদিকে, এমন নিরাপত্তাহীন, অপরিকল্পিত অনুষ্ঠান নিয়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছে বাংলাদেশি কমিউনিটি ও দর্শক মহলে।

অনুষ্ঠানে গণমাধ্যমকর্মীদের ওপর হামলার ঘটনায় নিন্দা জানিয়ে সুষ্ঠু বিচারের দাবি জানিয়েছেন বাংলাদেশ প্রেস ক্লাব, ইউএইর সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ প্রেস ক্লাব নেতারা।

আরও পড়ুন... জীবন নিয়ে উক্তি